ভ্যাকসিন নিয়ে হাহাকারের মাঝে ভারতে এলো স্পুটনিক ভি

Sputnik.jpg

Onlooker desk: কোভিশিল্ড ও কোভ্যাকসিন নিয়ে সারা ভারতে শুরু হয়েছে হাহাকার। এর মধ্যে টিকার ঘাটতি মেটাতে ভারতে এল রুশ ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি। শনিবার, যে দিন দেশে ১৮-ঊর্ধ্ব সকলের টিকাকরণের কথা, ঘটনাচক্রে সে দিনই ভারতে এসে পৌঁছল স্পুটনিক। গোটা বিশ্বে সর্ব প্রথম করোনা টিকা হিসেবে উঠে আসে এই স্পুটনিক ভি-এর নাম। কিন্তু শুরু থেকেই এই টিকা নিয়ে রয়েছে নানা বিতর্ক। যথেষ্ট গবেষণা না করেই এই টিকা বাজারে আনা হয়েছিল বলে প্রথমে অনেকে তা নিতে অস্বীকার করেন। তবে ল্যানসেট প্রত্রিকার এক প্রতিবেদনে এই টিকা নিরাপদ জানানোর পর অনেকেই নিতে রাজি হন। এছাড়া রুশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দাবি অনুযায়ী, ০.১ শতাংশ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এই ভ্যাকসিনের। এ পর্যন্ত ৬০টি দেশে স্পুটনিক ভি স্বীকৃতি পেলেও রাশিয়ার অনেক মানুষ এখনও এই টিকা নেননি বলে এক সমীক্ষায় জানা গিয়েছে। এদিকে টিকার আকাল মেটাতে স্পুটনিক ভি ব্যবহারে সম্মতি দিয়েছে ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া।
বিশেষজ্ঞরা অবশ্য জানাচ্ছেন, এই টিকা শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরিতে সক্ষম। ফলে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা তৈরি হয়। টিকাটি প্রথম তৈরি হয় মস্কোয়। এ বার ভারতে এর উৎপাদনে গ্ল্যান্ড ফার্মা, প্যানাকিয়া বায়োটেক, হেটেরো বায়োফার্মা, ভিরচো বায়োটেক ও স্টেলিস বায়োফার্মার মতো পাঁচটি ওষুধ কোম্পানির সঙ্গে হাত মিলিয়েছে রাশিয়া ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড। উৎপাদনকারী সংস্থার তরফে গোটা বিশ্ব জুড়ে ১০ ডলার দাম রাখা হয়েছে এই ভ্যাকসিনের। তবে ভারতের ক্ষেত্রে এখনও দাম নির্দিষ্ট ভাবে জানা যায়নি।
ভারতে ডঃ রেড্ডি’জ এই টিকা ডিস্ট্রিবিউশনের দায়িত্বে রয়েছে। স্পুটনিক যাতে দ্রুত দেশে পৌঁছয়, সে জন্য তার আমদানি প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করে হায়দরাবাদ কাস্টমস। তাদের এই কাজকে ‘সময়োচিত’ বলে টুইট করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top