শৈল শহর, বাজারে মাস্ক ছাড়া ঠাসাঠাসি ভিড়ে উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রী

Polish_20210709_213009998.jpg

এই গাদাগাদি ভিড়েই বাড়ছে উদ্বেগ

Onlooker desk: শৈল শহর, শহরের বাজারগুলিতে মাস্ক ছাড়া, দূরত্ব-বিধি ভেঙে বিপুল ভিড়কে ‘উদ্বেগের কারণ’ বলে চিহ্নিত করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ রুখতে কোভিড-বিধি মেনে চলার উপরে জোর দেন তিনি।
আজ, মঙ্গলবার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের আটটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন মোদী। সেখানেই উঠে আসে উদ্বেগের কথা। সম্প্রতি মানালি, হর কি পৌরি, কেম্পটি ফলস-সহ নানা জায়গায় গাদাগাদি ভিড়ের ছবি ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে কারও মুখে মাস্কের বালাই নেই। তার পরে নানা ক্ষেত্র থেকে উদ্বেগের প্রসঙ্গ উঠে আসে।
মাস্ক পরা, ভিড় এড়িয়ে চলা, টিকাকরণে এ দিন জোর দেন প্রধানমন্ত্রীও। তিনি বলেন, ‘এ কথা সত্যি যে করোনাভাইরাসের কারণে পর্যটন ও ব্যবসা ব্যাপক ভাবে মার খেয়েছে। কিন্তু অত্যন্ত জোর দিয়ে বলতে চাই যে মাস্ক ছাড়া শৈল শহর বা বাজারগুলিতে বিপুল ভিড় মেনে নেওয়া যায় না।’
তাঁর সংযোজন, ‘ভাইরাস নিজে থেকে আসে বা যায় না। বিধি না মেনে আমরাই তাকে স্বাগত জানাই। বিশেষজ্ঞরা বারবার সতর্ক করছেন। তাঁরা বলছেন যে ভিড়ভাট্টার জেরে কোভিড সংক্রমণের সংখ্যা বাড়বে। তাই ভিড় এড়াতে ব্যবস্থা নিতেই হবে।’
সোমবারই তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক করেছে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন। ঘোরাঘুরি, তীর্থ ভ্রমণ, আমোদ-আহ্লাদ আপাতত মুলতুবি রাখার পরামর্শ দিয়েছে তারা। সে জায়গায় বরং তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক হওয়ার কথা বলা হয়েছে। কারণ থার্ড ওয়েভ অবশ্যম্ভাবী। বিন্দুমাত্র অসতর্ক হওয়ার উপায় নেই। আগামী ২-৩ মাস তাই অত্যন্ত সতর্ক থাকতে বলেছে আইএমএ।
এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবারের বৈঠকে মোদী টিকাকরণে জোর দেন। যদিও টিকার অপর্যাপ্ত জোগান নিয়ে নানা সময়ে কাঠগড়ায় উঠেছে কেন্দ্রীয় সরকারই। এখনও দিল্লিতে টিকার জোগানে টান। পশ্চিমবঙ্গে ঘাটতির কারণে ১৮ ঊর্ধ্ব সকলের বিনামূল্যে টিকাকরণেও হোঁচট খেতে হচ্ছে। যদিও সে সব বিষয়ে ঢোকেননি মোদী।
বৈঠকে উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে করোনা কেসের বাড়বাড়ন্তের কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। গত সপ্তাহে কেন্দ্রীয় তথ্যে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে সংক্রমণের উদ্বেগজনক চেহারা ধরা পড়ে। দেশের যে ৭৩টি জেলায় পজিটিভিটির হার এখনও ১০-এর বেশি, তার মধ্যে ৪৭টিই উত্তর-পূর্বের।
গত সপ্তাহে একটি কোভিড সংক্রান্ত বৈঠকে স্বাস্থ্য মন্ত্রক মাস্ক পরা ও কোভিড-বিধি মেনে চলার উপরে জোর দেয়। তারা বলে — সংক্রমণ সব সময়ই ভিড়ে ঠাসা এলাকায় বেশি তাড়াতাড়ি ছড়ায়। আমরা যদি দায়িত্বজ্ঞানহীন হই এবং কোভিড-বিধি মেনে না চলি, তা হলে ভাইরাস ছড়াবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top