কোভিডে ধস্ত অর্থনীতি চাঙ্গা করতে বিশেষ স্কিম নির্মলা সীতারামনের

WhatsApp-Image-2021-06-28-at-5.43.23-PM.jpeg

Onlooker desk: অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে আটটি নতুন স্কিমের ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। স্বাস্থ্য ও পর্যটনে বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে।
এর মধ্যে অন্যতম প্রধান ঘোষণা দু’টি। প্রথমত, কোভিডে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ১.১ লক্ষ কোটি টাকা লোন গ্যারান্টি স্কিম। দ্বিতীয়ত, ইমার্জেন্সি ক্রেডিট লাইন গ্যারান্টি স্কিমে আরও অতিরিক্ত ১.৫ লক্ষ কোটি। ইমার্জেন্সি ক্রেডিট লাইন গ্যারান্টি স্কিমটি গত বছর আত্মনির্ভর ভারত প্যাকেজে ঘোষণা করা হয়। এতে মাঝারি ও ক্ষুদ্র শিল্পকে ঋণ দেওয়া হয়।
করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশ বিপর্যস্ত। তার উপরে তৃতীয় ঢেউ আসার আশঙ্কা। অর্থনীতির উপরে যথেষ্ট প্রভাব ফেলেছে কোভিডের এই দাপাদাপি। সেখান থেকে কিছুটা রেহাই পাওয়ার খোঁজ করছে সরকার।
জনস্বাস্থ্য খাতে অতিরিক্ত ২৩ হাজার কোটি টাকা ঘোষণা করেছেন সীতারামন। এ বাদে পর্যটন ক্ষেত্রের জন্য বিশেষ ঋণের কথা জানিয়েছেন। কোভিডে এই শিল্পের কোমর কার্যত ভেঙে গিয়েছে। সেই শিল্পকে ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করছে সরকার।
ট্র্যাভেল এজেন্সিগুলিকে ১০ লক্ষ টাকা ও ট্যুরিস্ট গাইডদের ১ লক্ষ টাকা ঋণ দেওয়া হবে। বিদেশি পর্যটকদেরও টানতে চায় কেন্দ্র। এই প্রক্রিয়া শুরু হলেই ৫ লক্ষ জনকে বিনামূল্যে ট্যুরিস্ট ভিসা দেওয়া হবে। ২৫ লক্ষ ক্ষুদ্র ঋণগ্রহীতাকে ১.২৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ কম সুদে দেওয়ার স্কিমও ঘোষণা করেছেন সীতারামন।
সোমবার ২৪ ঘণ্টায় ৪৬, ১৪৮ নতুন সংক্রমণের হদিস মিলেছে। মারা গিয়েছেন ৯৭৯ জন। গত ১২ এপ্রিলের পর এই প্রথম দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ১০০০-এর নীচে নামল।
কোভিড অতিমারীর শুরু থেকেই পরিস্থিতি মোকাবিলায় কিছু ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। গত বছর মে-তে ঘোষণা করা হয়েছিল আত্মনির্ভর ভারত প্যাকেজ। এতে ২১ লক্ষ কোটি টাকার স্টিমুলাস প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়। সরকারের দাবি ছিল, এই সহায়তা দেশের মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের ১০ শতাংশের সমতুল।
দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রেক্ষিতে অর্থনীতির ২ লক্ষ কোটি টাকার ক্ষতি হতে পারে। জুনের মাসিক বুলেটিনে এ কথা জানিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া বা আরবিআই। এই পরিস্থিতিতে সীতারামনের ঘোষণাগুলি গুরুত্বপূর্ণ।
প্রথমের তুলনায় করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কিছু ফারাক আছে। প্রথমত এই ঢেউ অনেক বেশি ভয়াবহ এবং সংক্রামক। দ্বিতীয়ত, এতে ছোট শহর এমনকী গ্রামও যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যে কারণে অর্থনীতির উপরে প্রভাবও পড়ে বেশি।
এ মাসের গোড়ায় সরকার জিডিপি-পরিসংখ্যান দিয়েছে। তাতে দেখা গিয়েছে, ২০২০-২১ অর্থবর্ষে অর্থনীতি ৭.৩ শতাংশ সঙ্কুচিত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top