১২ বছর হলেই নেওয়া যাবে টিকা, ৫ কোটি ভ্যাকসিন পাঠাচ্ছে ফাইজার

Pfizer.jpg

Onlooker desk: বৃহস্পতিবারও ২৪ ঘণ্টার হিসাবে দু’লক্ষের উপরে থাকলে দেশের দৈনিক সংক্রমণ। এ দিনে নতুন করে ২ লক্ষ ১১ হাজার সংক্রামিতের হদিস পাওয়া গিয়েছে। মারা গিয়েছেন ৩ হাজার ৮৪৭ জন। এ পর্যন্ত দেশে মোট ২ কোটি ৭৩ হাজার মানুষ কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে সওয়া তিন লক্ষের।
এর মধ্যে কিছুটা আশার সঞ্চার ঘটাচ্ছে টিকাকরণের খবর। আমেরিকার পর দ্বিতীয় দেশ হিসাবে ২০ কোটি টিকার ব্যবস্থা করেছে ভারত। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দাবি, ১৮ থেকে ৪৪ বয়সিদের মধ্যে ১ কোটি ৩৮ লক্ষেরও বেশি জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে। মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা ফাইজার ভারতকে শর্তসাপেক্ষে পাঁচ কোটিরও বেশি কোভিড ১৯ টিকা দেবে বলে জানিয়েছে। তাদের টিকা ১২ বছরের ঊর্ধ্বে সকলের শরীরে প্রয়োগ করা যাবে। তবে প্রতি কিছু ক্ষেত্রে ছাড় চেয়েছে তারা। জনসন অ্যান্ড জনসনের কোভিড ১৯ ভ্যাকসিনও যাতে দেশে আনা যায়, সে চেষ্টা করছে সরকার। হায়দরাবাদের সংস্থা বায়োলজিক্যালই দেশে এই টিকা প্রস্তুত করবে। ডিসেম্বরের মধ্যে ভারতের জন্য ৩০ কোটি টিকা প্রস্তুত করার প্রস্তাব দিয়েছে তারা। তবে সে জন্য সরকারের কাছে আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছে। পাশাপাশি ২ থেকে ১৮ বছর বয়সিদের টিকা দেওয়া যাবে কি না, সে ব্যাপারে শীঘ্রই ট্রায়াল শুরু করতে চলেছে ভারত বায়োটেক।
কিন্তু কেন্দ্রের ভ্যাকসিন সংগ্রহ পদ্ধতির সরলীকরণ প্রয়োজন বলে মত প্রকাশ করেছেন দেশের অন্যতম অগ্রণী ব্যাঙ্কার, কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের কর্ণধার উদয় কোটাক। এখন যে ভাবে কেন্দ্র ৫০ শতাংশ ও বাকিটা রাজ্যগুলির হাতে ছেড়ে রেখে টিকা কেনার পদ্ধতি স্থির হয়েছে, সেটা দীর্ঘস্থায়ী প্রক্রিয়া হতে পারে না বলে কোটাকের ইঙ্গিত।
হরিয়ানার বছর ৮২-র এক বৃদ্ধকে মোনোক্লোনাল অ্যান্টিবডি ককটেলে চিকিৎসা করা হয়েছে। একাধিক কো-মর্বিডিটির শিকার এই ব্যক্তিকেই দেশে প্রথম এ ভাবে চিকিৎসা করা হলো। গত বছর তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনা পজিটিভ হওয়ার পর এই ককটেলেই চিকিৎসা হয়েছিল তাঁর। মূলত আমেরিকা ও ইউরোপে ব্যবহার এই পদ্ধতি সম্প্রতি দেশে এসেছে। তবে তার খরচ যথেষ্ট।
বুধবার আবার কোভিডে মৃত্যু হয়েছে আসামের চার বারের বিধায়ক মজেন্দ্র নার্জারির। ২০০৬ থেকে কোকরাঝাড় জেলার গোসাইগাঁও বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক ছিলেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top