একদিনে ৪,৩২৯ মৃত্যু দেশে, সংক্রমণ কমলেও স্বস্তি নেই

INDIA.jpg

দেশে ক্রমশ বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা — টুইটার

Onlooker desk: এই বৃদ্ধির শেষ কোথায় কেউ জানে না। মঙ্গলবার ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনার জেরে মারা গেলেন ৪,৩২৯ জন। দৈনিক সংক্রমণ কমে হয়েছে ২ লক্ষ ৬৩ হাজার। এই নিয়ে পরপর দু’দিন ৩ লক্ষের নীচে নামল দৈনিক সংক্রমণ। কিন্তু মৃত্যুর সংখ্যায় রেকর্ড তৈরি হলো। বস্তুত, ১১ মে থেকে এ পর্যন্ত গত এক সপ্তাহে ৩২ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন, সংক্রামিত ২৫ লক্ষেরও বেশি। গত ২৮ এপ্রিল থেকে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা গড়ে ৩ হাজারের নীচে নামেনি।
মৃত্যু মিছিলের বড় অংশ জুড়ে রয়েছে চিকিৎসকদের নাম। ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ) জানিয়েছে, কোভিডে এ পর্যন্ত ১০০০ চিকিৎসক প্রাণ হারিয়েছেন। টিকাকরণের পর পাঁচ মাস কেটে গেলেও মাত্র ৬৬ শতাংশ স্বাস্থ্যকর্মীর ভ্যাকসিনেশন হয়েছে।
করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশের নানা প্রান্তের চিকিৎসকদের সঙ্গে সোমবার বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন জানিয়েছেন, জুলাইয়ের মধ্যে ৫১ কোটির বেশি ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে দেশে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ টিকা উৎপাদনকারী দেশে ভ্যাকসিনের এত আকাল কেন, কেনই বা করোনার দাপাদাপি যখন কম ছিল, তখন পর্যাপ্ত স্বাস্থ্য পরিকাঠামো তৈরি করা হয়নি, কেন্দ্রীয় সরকার এ ব্যাপারে ঠিক কী ভূমিকা নিয়েছে, এ সব প্রশ্নের উত্তর প্রত্যাশিত ভাবেই মন্ত্রীর কাছে নেই। বরং টুইটে তিনি লেখেন — #বিশ্বের সবচেয়ে বড় টিকাকরণে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে টিকার উৎপাদন ও জোগান বাড়ানোর লাগাতার চেষ্টা চলছে। সোমবারই আবার করোনা চিকিৎসার গাইডলাইন থেকে প্লাজমা থেরাপিকে বাদ দিয়েছে সরকার।
পরিস্থিতি এমনই যে সোমবার এলাহাবাদ হাইকোর্টের প্রবল ভর্ৎসনার মুখে পড়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। গ্রামাঞ্চল ও ছোট শহরে স্বাস্থ্য পরিকাঠামো নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সে দিন পর্যবেক্ষণে আদালত জানায় — গোটা ব্যবস্থাই চলছে ‘রামের ভরসায়’।
তবে একটা আশার কথা শুনিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। তারা জানিয়েছে, টিকা নেওয়ার পর এ পর্যন্ত মাত্র ২৬ জনের রক্তক্ষরণ ও রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার সমস্যা হয়েছে। যা মোট টিকাপ্রাপ্তর নিরিখে খুবই কম। সোমবার একটি নতুন অ্যান্টি কোভিড ওষুধও বাজারে এনেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। মন্ত্রকের দাবি, এতে অতি দ্রুত রোগ নিরাময় হয় এবং রোগীর সাপ্লিমেন্টারি অক্সিজেনের নির্ভরতা কমায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top