শয্যা না পেয়ে নয়ডায় সরকারি হাসপাতালের পার্কিং লটে গাড়িতে মৃত করোনা রোগী

WhatsApp-Image-2021-05-01-at-5.23.11-PM.jpeg

Onlooker desk: দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেসামাল দেশের নানা প্রান্ত থেকে আসছে মর্মান্তিক খবর। এ বার জানা গেল, শয্যা না পেয়ে নয়ডার একটি সরকারি হাসপাতালের পার্কিং লটে মৃত্যু হলো কোভিড পজিটিভ বছর ৩৫ এর তরুণীর। হাসপাতালের বাইরে গাড়িতে তিন ঘণ্টা শুয়ে ছিলেন তিনি। সঙ্গে থাকা ব্যক্তি একটা শয্যার জন্য সকলের হাতেপায়ে ধরেও ব্যবস্থা করতে পারেননি।
পেশায় ইঞ্জিনিয়ার জাগৃতি গুপ্তা নামে ওই তরুণী গ্রেটার নয়ডায় চাকরি করতেন। সেই সূত্রে একাই থাকতেন নয়ডায়। তাঁর দুই সন্তান বাবার সঙ্গে মধ্যপ্রদেশে থাকে।
সচিন নামে এক প্রত্যক্ষদর্শীর কথায়, ‘আমি দাঁড়িয়ে ছিলাম। ভদ্রমহিলা একটা গাড়িতে শুয়ে ছিলেন। তাঁকে হাসপাতালে এনেছিলেন বাড়িওয়ালা। সেই ব্যক্তি পাগলের মতো দৌড়োদৌড়ি করছিলেন একটা শয্যার জন্য। দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ মহিলা মারা গেলেন। সঙ্গে থাকা ব্যক্তি দ্রুত রিসেপশনে গিয়ে সে কথা জানাতে কর্মীরা বেরিয়ে এসে মহিলাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।
গত সপ্তাহেই উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের দাবি ছিল, সে রাজ্যে অক্সিজেনের কোনো আকাল নেই। শয্যার অভাবও মিটিয়ে ফেলা গিয়েছে। কিন্তু এ সব দাবির সঙ্গে যে বাস্তবের মিল নেই, নানা ঘটনায় সেটা স্পষ্ট। নয়ডা হেল্পলাইনে ফোন করা হলে তারাও জানিয়েছে, কোথাও কোনো শয্যা খালি নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top