কোভ্যাক্সিনের ৩২৪ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি বাতিল করল ব্রাজিল, বিবৃতি ভারত বায়োটেকেরও

covaxin.jpg

Onlooker desk: ভারত বায়োটেকের সঙ্গে ৩২৪ মিলিয়ন ডলারের কোভ্যাক্সিন-চুক্তি বাতিল করল ব্রাজিল। এই চুক্তি ঘিরে ব্রাজিনের প্রেসিডেন্ট জৈর বলসোনারোর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছিল। চুক্তি বাতিলের কথা ঘোষণা করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মার্সেলো কিরোগা।
একটি সাংবাদিক বৈঠকে এ কথা জানান তিনি। এ প্রসঙ্গে ফেডারেল কম্পট্রোলার জেনারেল অফ দ্য ইউনিয়নের (সিজিইউ) অনিয়মের অভিযোগ তুলে ধরেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি জানান, চুক্তি বাতিল থাকাকালীন অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত হবে।
ভারত বায়োটেক জানিয়েছে, একটি একটি করে পদক্ষেপ পালন করে ব্রাজিলের সঙ্গে চুক্তিতে গিয়েছিল তারা। আট মাস ধরে এই প্রক্রিয়া চলেছে।
মঙ্গলবার পর্যন্ত এ জন্য একটি টাকাও ভারত বায়োটেক নেয়নি। কোনও ভ্যাকসিনও ব্রাজিলে পাঠানো হয়নি বলে তারা জানিয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে যে পদ্ধতিতে চুক্তি হচ্ছে, এ ক্ষেত্রেও তা-ই হয়েছিল।
কিরোগাও সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, ‘সিজিইউ-এর প্রাথমিক বিশ্লেষণে চুক্তিতে কোনও অনিয়ম পাওয়া যায়নি। কিন্তু কোনও ত্রুটি না-রাখার স্বার্থে স্বাস্থ্য মন্ত্রক চুক্তিটি বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’
কোভিড-১৯ মোকাবিলার প্রশ্নে এমনিতেই প্রবল সমালোচিত বলসোনারো। তার মধ্যে তাঁর বিরুদ্ধে টিকা কেনায় অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের একট আধিকারিক জানিয়েছেন, তিনিও প্রেসিডেন্টকে সতর্ক করেন।
ভারত বায়োটেকের সঙ্গে ২০ কোটি কোভ্যাক্সিন ডোজের চুক্তি করে ব্রাজিল। কিন্তু অভিযোগ, এই টিকা অনেক বেশি দামে কেনা হচ্ছে। তড়িঘড়ি করে এবং সব নিয়ম না মেনে এ কাজ হয়েছে বলে অভিযোগ।
সেনেটের একটি প্যানেলও এই চুক্তি খতিয়ে দেখছে। সেনেটর র্যািনডল্ফ রডরগিস সোমবার সুপ্রিম কোর্টে বলসোনারোর বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
বলসোনারো অবশ্য বরাবরই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। আগামী বছর ব্রাজিলে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন।
ভারত বায়োটেক একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে — গত নভেম্বরে ব্রাজিলের সঙ্গে তাদের প্রথম বৈঠক হয়। তার পরে আট মাস, অর্থাৎ জুন পর্যন্ত প্রতিটি পদক্ষেপ তারা নিয়ম মেনে করেছে। চুক্তির আগে ‘স্টেপ বাই স্টেপ’ পদক্ষেপের কথা জানিয়েছে ভারত বায়োটেক।
গত ৪ জুন তারা ইমার্জেন্সি ইউজ অ্যাপ্রুভাল পেয়েছে। তার পরে মঙ্গলবার পর্যন্ত কোনও টাকা নেওয়া হয়নি। বা কোনও টিকাও দেওয়া হয়নি বলে ভারত বায়োটেক জানায়। সেই সঙ্গেই তাদের দাবি, এই এক পদক্ষেপে বিভিন্ন দেশে টিকা সরবরাহ করে তারা।
জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে, ব্রাজিলে মোট ১৮.৫ মিলিয়ন মানুষ কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। সংক্রমণে আমেরিকা ও ভারতের পরে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। এ পর্যন্ত ৫ লক্ষ ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন। মৃত্যুর নিরিখে আমেরিকার পরেই দ্বিতীয় স্থানে ব্রাজিল। এই দুই দেশ বাদে কোথাও কোভিডে মৃত্যু ৫ লক্ষ ছাড়ায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top