আপাতত স্থগিত বিতর্কিত প্রাইভেসি পলিসি, দিল্লি হাই কোর্টে জানাল হোয়াটসঅ্যাপ

WhatsApp-Image-2021-07-09-at-1.28.42-PM.jpeg

Onlooker desk: আপাতত স্থগিত থাকছে হোয়াটসঅ্যাপের বিতর্কিত নতুন প্রাইভেসি পলিসি। আজ, শুক্রবার দিল্লি হাই কোর্টকে এ কথা জানিয়েছে সংস্থা।
ডেটা প্রোটেকশন বিল আসার আগে ব্যবহারকারীদের এই নতুন পলিসি ব্যবহারে বাধ্য করবে না। নতুন নিয়মে ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তার অধিকার লঙ্ঘনের আশঙ্কা করা হচ্ছে। তা ছাড়া, এর মাধ্যমে হোয়াটসঅ্যাপ তাদের পেরেন্ট সংস্থা ফেসবুকের সঙ্গে ব্যবহারকারীদের গোপন তথ্য ভাগ করে নিতে পারে বলেও অভিযোগ।
কম্পিটিশন কমিশন অফ ইন্ডিয়া বা সিসিআই হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুকের বিরুদ্ধে একটি তদন্ত করে। দুই সংস্থাকেই গত মাসে নোটিস দিয়ে এই বিতর্কিত পলিসি সম্বন্ধে জানতে চায় সিসিআই। এই তদন্তের বিরুদ্ধে আদালতে যায় হোটাসঅ্যাপ, ফেসবুক। কিন্তু এক বিচারপতির বেঞ্চ সেই আবেদন খারিজ করে দেয়।
তার প্রেক্ষিতে পাল্টা আবেদন করে দুই সংস্থা। সেই আবেদনরই শুনানি ছিল আজ, শুক্রবার। হাই কোর্ট জানায়, এই পলিসিকে ইতিমধ্যেই সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ জানানো হয়েছে।
পার্সোনাল ডেটা প্রোটেকশন বিল এখনও আইন হয়নি। তার আগে হোয়াটসঅ্যাপ তার ব্যবহারকারীদের নতুন পলিসিতে সায় দেওয়ার জন্য জোর করছে। গত মাসে দিল্লি হাই কোর্টে এই অভিযোগ জানায় কেন্দ্র। কী ভাবে, তা-ও নির্দিষ্ট করে জানায় কেন্দ্র। তারা বলে, নিয়মিত নোটিফিকেশন পাঠিয়ে সায় আদায়ের জন্য রীতিমতো জোরাজুরি শুরু করেছে হোয়াটসঅ্যাপ।
হোয়াটসঅ্যাপের নতুন প্রাইভেসি পলিসি এ বছর ফেব্রুয়ারিতেই চালু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সংস্থা তখন তা করেনি। তারাই কিছুটা বিলম্ব করে। প্রথমে ছিক ছিল মে মাসের মাঝামাঝি নতুন নিয়ম কার্যকর হবে। এরই মধ্যে জনতার আপত্তি ও বিশেষজ্ঞদের মতামতের প্রেক্ষিতে পদক্ষেপ করে সরকার। এ নিয়ে অন্যান্য দেশেও ব্যবহারকারীদের রোষের মুখে পড়েছে হোয়াটসঅ্যাপ।
বিতর্কের মুখে সরকারকে হোয়াটসঅ্যাপ জানায় যে ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তাই তাদের কাছে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। সরকার তাদের নতুন পলিসি প্রত্যাহারের কথা বলে। গত ১৮ মে তার জবাব দেয় হোয়াটসঅ্যাপ। তারা লেখে — সরকারের চিঠির প্রেক্ষিতে এই জবাব। আমরা আশ্বস্ত করছি, ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তাই আমাদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।
ভারতই হোয়াটসঅ্যাপের সবচেয়ে বড় বাজার। দেশের ৫০০ মিলিয়ন বা ৫০ কোটি নাগরিক তা ব্যবহার করে। এই সংখ্যা আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপের।
আদালতে সংস্থার হয়ে সওয়াল করছেন সিনিয়র আইনজীবী হরিশ সালভে। তিনি বলেন, ‘ডেটা প্রোটেকশন বিল কার্যকর হওয়ার আগে আমরা কিছু করব না। ততদিন পর্যন্ত আপডেট মুলতুবি রাখা হচ্ছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top