বোমা বিস্ফোরণে ভেঙে পড়ল মাটির বাড়ি, আটক বাবা ও ছেলে

WhatsApp-Image-2021-07-09-at-2.03.26-PM.jpeg

ঘটনাস্থলে তদন্তে পুলিশ

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান

ঘরে লুকিয়ে রাখা বোমা বিস্ফোরণে ভেঙে পড়লো গোটা একটা মাটির বাড়ি। বাড়ির দেওয়ালের নীচে চাপা পড়ে আহত হন পরিবারের তিন সদস্য।
শুক্রবার শেষরাতের এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের ভাতার থানার বানেশ্বরপুর গ্রামে। বিকট শব্দ শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে যান প্রতিবেশীরা। তাঁরাই ভেঙে পড়া বাড়ির দেওয়াল সরিয়ে বাড়িটির বাসিন্দা, বছর ৫৫-র জামরুল মল্লিক, তাঁর স্ত্রী মারজেদা বিবি ও ছেলে লালচাঁদকে উদ্ধার করেন। তিন জনকে নিয়ে যাওয়া হয় ভাতার স্টেট জেনারেল হাসপাতালে।
জামরুল ও লালচাঁদকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হলেও মারজেদা বিবি এখনও হাসপাতালে ভর্তি। বাবা ও ছেলেকে পুলিশ আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।
ঘটনার খবর পেয়ে ভাতার থানার পুলিশ জামরুলের বাড়িতে যায়। সবদিক খতিয়ে দেখার পর পুলিশ কর্তারা এক প্রকার নিশ্চিত হন যে মাটির বাড়িটির ভিতরেই রাখা ছিল বোমা। সেই বোমার বিস্ফোরণেই বাড়িটি ভেঙে পড়েছে ।
তদন্তের স্বার্থে ওই বাড়ি ও তার চারপাশ ঘিরে রেখেছে পুলিশ। বাড়ির ভিতরে আর বোমা রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, লালচাঁদ নানা অপরাধমূলক কাজে জড়িত। এই অভিযোগে অনেক আগেই পুলিশের খাতায় নাম উঠেছে তার। বেআইনি ভাবে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অভিযোগে বছর দেড়েক আগে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছিল লালচাঁদ। কয়েক বছর আগে ভাতার কলেজে একটি অশান্তির ঘটনাতেও তার নাম জড়ায়।
তারপরে সে কেরালায় চলে যায়। সেখানে বাবা জামরুল মল্লিকের সঙ্গে নির্মাণ শ্রমিকের কাজে যোগ দেয়। সপ্তাহ তিনেক আগে বাবা ও ছেলে কেরালা থেকে ভাতারের বানেশ্বরপুর গ্রামের বাড়িতে ফেরে। আর এ দিন তাদের বাড়িতে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা।
তদন্তে নেমে পুলিশ জেনেছে, গত বৃহস্পতিবার রাতে পাশের কুলনগর গ্রামের কয়েকজন যুবকের সঙ্গে বচসা হয়েছিল লালচাঁদ ও তার বন্ধুদের। কী নিয়ে বচসা, সেটা পরিষ্কার নয়। তবে বোমা মজুতের সঙ্গে এই গোলযোগের কোনও সম্পর্ক আছে কি না, সেই বিষয়ে খোঁজখবর শুরু করেছে পুলিশ।
বিস্ফোরণের তদন্তে বম্ব স্কোয়াড ও ফরেন্সিক বিভাগের সাহায্য নিচ্ছে ভাতার থানার পুলিশ। জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল্যাণ সিংহরায় বলেন, ‘বিস্ফোরণের খবর পাওয়ার পরেই পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তদন্ত শুর হয়েছে। ওই বাড়ির দু’জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হচ্ছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top