নিষিদ্ধ হলো ড্রোন, নির্দেশিকা জারি শ্রীনগরের জেলাশাসকের

drone-spotted-near-Jammu-military-base.jpg

প্রতীকী চিত্র

Onlooker desk: শ্রীনগরে ড্রোন বা যে কোনও ধরনের স্বয়ংক্রিয় বায়ুযান নিষিদ্ধ করল শ্রীনগর জেলা প্রশাসন। প্রসঙ্গত, সপ্তাহখানেক আগেই জম্মুর বায়ুসেনা ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা চালানো হয়। যার পিছনে পাকিস্তানের মদত রয়েছে বলে অভিযোগ।
শ্রীনগরের জেলাশাসক মহম্মদ আজাজ শনিবার একটি নির্দেশিকা জারি করেছেন। সেখানে তিনি ওই জেলায় ড্রোন বা এ ধরনের যে কোনও যান মজুত, বিক্রি ও সংগ্রহে রাখা নিষিদ্ধ করেছেন। যাঁদের কাছে ইতিমধ্যেই ড্রোন বা ড্রোন ক্যামেরা কিংবা এ রকম কিছু রয়েছে, তাঁদের স্থানীয় পুলিশ স্টেশনে তা জমা করতে হবে। বিনিময়ে রসিদ নিতে হবে।
ড্রোন ব্যবহার করে কোনও ধরনের সরকারি কাজের ক্ষেত্রেও আগাম জানাতে হবে পুলিশকে। ওই নির্দেশিকাতেই বলা হয়েছে, কৃষি, পরিবেশ সংরক্ষণ এবং বিপর্যয় মোকাবিলার কাজে অনেক সময় ড্রোন ব্যবহার করা হয়। তা দিয়ে ম্যাপিং, সমীক্ষা বা নজরদারি চলে। এ ক্ষেত্রেও কাজ শুরুর আগে জানাতে হবে পুলিশকে।
নির্দেশ অমান করলে সংশ্লিষ্ট আইন মেনে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
গত শনিবার গভীর রাতে দু’টি বিস্ফোরণ হয় জম্মুর বায়ুসেনা বিমানবন্দরে। কয়েক মিনিটের ব্যবধানে একাধিক বিস্ফোরণে সামান্য ক্ষতি হয় একটি ভবনের। দু’জন আহতও হন। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কালুচক সেনা ঘাঁটির উপরে ড্রোন উড়তে দেখা যায়। নিরাপত্তা বাহিনী তাকে নিশানা করে গুলি ছোড়ে। এতে উড়ে যায় দু’টি ড্রোনই।
প্রাথমিক ভাবে এই হামলার পিছনে পাকিস্তান যোগের ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে। সেনার শীর্ষকর্তাদের মতে, কোনও রাষ্ট্রের মদত ছাড়া ওই হামলা সম্ভব নয়। পাক মদতপুষ্ট জঙ্গিগোষ্ঠীর জড়িত থাকারও ইঙ্গিত দিয়েছেন তাঁরা। যার সূত্রে নাম জড়িয়েছে লস্কর ই তৈবার। জৈশ ই মহম্মদের যোগও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।
ভারতের কোনও গুরুত্বপূর্ণ সেনা ঘাঁটিতে এ ভাবে ড্রোন হামলার নজির বিরল। সাম্প্রতিক অতীতে এমনটা ঘটেছে বলে মনে করতে পারছেন না বিশেষজ্ঞরা।
এরই মধ্যে প্রশ্ন উঠেছিল ড্রোনের সহজলভ্যতা নিয়ে। সহজেই এই ড্রোন কিনতে পাওয়া যায়। কেউ চাইলে বাড়িতেও তা বানাতে পারেন। গত বৃহস্পতিবারই এ বিষয়টি উল্লেখ করেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রধান, জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারাভানে।
তার দিনদুয়েক বাদেই নির্দেশিকা জারি করে ড্রোন নিষিদ্ধ করল শ্রীনগর প্রশাসন।
প্রসঙ্গত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতীয় এলাকায় ড্রোনের মাধ্যমে অস্ত্রশস্ত্র ও মাদক পাচারের অভিযোগ উঠেছে আগেও।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top