বাতিল নয়, উল্টো পথে হেঁটে দশম-দ্বাদশের পরীক্ষা নেবে বিশ্বভারতী

Visva-Bharati-University.jpg

শান্তিনিকেতন: সিবিএসই, আইসিএসই-র মতো দিল্লি বোর্ড তো বটেই, রাজ্য সরকারও বাতিল করেছে মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক। কিন্তু করোনা আবহে দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা হবে বিশ্বভারতীতে। পরীক্ষার দিনক্ষণ ঘোষণা করা হয়েছে বুধবার। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিজ্ঞপ্তি ঘিরে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। ছাত্রছাত্রী-অভিভাবকদেরও অনেকে এতে ক্ষুব্ধ।
বুধবারের বিজ্ঞপ্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, আগামী ৫ জুলাই শুরু হবে পাঠভবন ও শিক্ষাসত্রের প্রি ডিগ্রি পরীক্ষা। বুধবারই এ নিয়ে সিদ্ধান্তের জন্য বৈঠকে বসেছিলেন অধিকর্তা, অধ্যক্ষ, প্রোক্টর, ডিন-সহ সংশ্লিষ্ট কর্তারা। বৈঠকে পৌরোহিত্য করেন উপাচার্য। সেখানে স্থির হয়েছে, আগামী ৫ জুলাই অনলাইন মাধ্যমে (জুম লিঙ্ক বা হোয়াটসঅ্যাপ বা অন্য কোনও অডিয়ো-ভিস্যুয়াল লিঙ্ক) পরীক্ষা হবে। এর পরে শুরু হবে এ বছরের স্কুল সার্টিফিকেট এগজামিনেশনস। পরীক্ষার স্থল, সূচি ও পদ্ধতি শীঘ্রই জানানো হবে। তবে অতিমারীর গতিপ্রকৃতি এবং আগামী দিনে সরকার কোনও বিধিনিষেধ আরোপ করলে পরীক্ষার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হতে পারে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। দশম এবং দ্বাদশের এই পরীক্ষা বিশ্বভারতী পড়ুয়াদের কাছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের সমতুল। তবে লিখিত পরীক্ষা হবে না বলে জানিয়েছে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। জুম বা হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে মৌখিক পরীক্ষা হবে।
বিশ্বভারতীর ছাত্রছাত্রীদের একাংশ গত ৭ জুন তাদের প্রি ডিগ্রি পরীক্ষা বাতিল করার দাবি জানায়। তাদের
যুক্তি ছিল, গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে করোনার কারণে পড়াশোনা ঠিকঠাক হয়নি। এই অবস্থায় পরীক্ষা হলে তাঁদের সমস্যা হবে। সে কারণে ই-মেলে পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে সরব হয় পড়ুয়ারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই দাবিতে সিলমোহর দিলেন না বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।
করোনা আবহে ইতিমধ্যে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা বাতিল করেছে কেন্দ্র। মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাও বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। কী ভাবে ছাত্রছাত্রীদের মূল্যায়ন করা হবে, সে বিষয়টা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে গত সোমবার এ সংক্রান্ত ঘোষণার পর সাতদিনের মধ্যে মূল্যায়নের পদ্ধতি জানানোর কথা বলা হয়েছে শিক্ষা দপ্তর নিযুক্ত বিশেষজ্ঞ কমিটিকে। এ ক্ষেত্রে যাতে ছাত্রছাত্রীদের স্বার্থ সুরক্ষিত থাকে এবং তারা যাতে সিবিএসই এবং আইসিএসই বোর্ডের পড়ুয়াদের থেকে পিছিয়ে না পড়ে, সেটা নিশ্চিত করতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগে অবশ্য জুলাই এবং অগস্টে উচ্চ মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে বলে ঘোষণা করেছিলেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top