বোমাবাজিতে উড়ে গেল মাথা, ফের উত্তপ্ত ভাটপাড়া

IMG-20210606-WA0006.jpg

Onlooker desk: ফের বোমাবাজিতে উত্তপ্ত ভাটপাড়া। এ বার বোমার আঘাতে দেহ থেকে মাথা উড়ে গেল এক বিজেপি কর্মীর। মৃতের নাম জেপি যাদব। উত্তেজনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। এই ঘটনার পিছনে তৃণমূলের হাত রয়েছে বলে বলে দাবি করেন তিনি। যদিও, অভিযোগ অস্বীকার করে এই ঘটনাকে বিজেপির গোষ্ঠীকোন্দলের ফল বলে দাবি করেছেন জগদ্দলের তৃণমূল বিধায়ক সোমনাথ শ্যাম।
নির্বাচনের পর থেকেই মাঝে মধ্যে তৃণমূল-বিজেপি কাজিয়ায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভাটপাড়া। এর মধ্যে গত কয়েক দিন ধরে উত্তেজনা চরমে উঠেছিল। শুক্রবার রাতে জগদ্দলে ব্যাপক বোমাবাজি হয়। অন্তত ১৫০টি বোমা ছোড়া হয় বলে স্থানীয়দের দাবি। এমনকী বেশ কিছু বাড়িও ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। ওই সময় ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত হন ভাটপাড়া থানার দুই পুলিশকর্মীও। এদিকে ঘটনার তদন্তে নেমে মোট ১০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃতদের কাছে ১২ রাউন্ড গুলি, তিনটি আগ্নেয়াস্ত্র ও ২০টি কৌটো বোমা পাওয়া গিয়েছে বলে পুলিশের দাবি।
এদিন ভাটপাড়ার এক নম্বর কুলি লাইন এলাকায় জেপি যাদব নামে ওই জুটমিল শ্রমিককে তিন জন দুষ্কৃতী ঘিরে ধরে বোমা ছোড়ে বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। ঘটাস্থলে পৌঁছে বিজেপি সাংসদ বলেন, ‘পুলিশের সামনেই এই ধরনের ঘটনা ঘটছে। বিজেপি কর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছেন। এমনকী বাদ যাচ্ছেন না পুলিশকর্মীরাও।

বোমার চিহ্ন

ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও তৃণমূলের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন। বাঁকুড়াতে দলীয় কর্মসূচিতে বলেন, ‘অর্জুন সিংকে টার্গেট করা হয়েছে। পুরো ব্যারাকপুর লোকসভাতে আগুন জ্বালিয়ে রাখা হয়েছে।’ পরে পুরুলিয়া গিয়েও বলেন, ‘আমাদের হেস্টিং অফিসের সামনে বোমা পাওয়া গিয়েছে। বোমা এখন রাজ্যে কুটিরশিল্প। এটাকে কাজে লাগিয়ে বিরোধীদের ধ্বংস করা হচ্ছে।’
এদিকে ভাটপাড়ার ঘটনা প্রসঙ্গে নৈহাটির বিধায়ক পার্থ ভৌমিক বলছেন, ‘বোমাবাজিতে অভিযুক্তরা সকলেই দুষ্কৃতী। পুলিশ কড়া হাতে ব্যবস্থা নিক।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top