চিকিৎসা বিজ্ঞানের সঙ্গে সম্পর্কই নেই, শিবিরে টিকা দিয়ে বিতর্কে তৃণমূলের তবস্সুম আরা

Tabassum-Ara.jpeg

টিকা দেওয়ার এই ভিডিয়োই ভাইরাল হয়

আসানসোল: শিবিরে আগতকে টিকা দিতে দেখা গেল আসানসোলের তৃণমূল নেত্রী তবস্সুম আরাকে (Tabassum Ara)। তিনি আসানসোল পুরসভার বিদায়ী ডেপুটি মেয়র। এই ভিডিয়ো ভাইরাল হতেই বেধেছে বিতর্ক। নন-মেডিক্যাল পার্সন হয়েও কী করে তিনি এমনটা করেন, সে প্রশ্ন তুলছেন অনেকে।
তবস্সুমের (Tabassum Ara) অবশ্য দাবি, তিনি সচেতনতা বাড়াতেই এমনটা করেছেন। তা ছাড়া স্কুলে পড়াকালীন তাঁর নার্সিং কোর্সও করা ছিল।
এমন ঘটনা হয়ে থাকলে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। তবে বিজেপি এ নিয়ে বিঁধতে ছাড়েনি। কটাক্ষ করে টুইট করেন বাবুল সুপ্রিয়, অগ্নিমিত্রা পলরা। তৃণমূলের কাছে মানুষের জীবন ‘মূল্যহীন’ বলে দাবি করেন তাঁরা।
শনিবার কুলটির সীতারামপুরে চবকা এলাকায় একটি টিকাকরণ কেন্দ্র চলছিল। সেখানে চিকিৎসক, নার্স সকলেই ছিলেন। ভিডিয়োয় দেখা যায়, নার্সের হাত থেকে ইঞ্জেকশন নিয়ে নিচ্ছেন তবস্সুম। এক মহিলাকে টিকা দিচ্ছেন।
এ দিনের ওই শিবিরে মূলত যৌনকর্মীদেরই টিকার আয়োজন করা হয়। তবস্সুম (Tabassum Ara) সেখানে যান। তিনি ওই পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের সদস্যও। এর পরই বিতর্কের ঝড় ওঠে। বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় লেখেন — প্রশাসকদের উপরে তৃণমূলের কোনও নিয়ন্ত্রণ আছে বলে মনে হয় না। তৃণমূলের তবস্সুম আরা আসানসোল পুরসভার প্রশাসকমণ্ডলীর সদস্য। একটি টিকাকরণ কেন্দ্রে আগতদের নিজেই টিকা দিয়েছেন তিনি। শ’য়ে শ’য়ে মানুষের প্রাণ এতে বিপন্ন হয়েছে। রাজনৈতিক রং কি তাঁকে কঠোর শাস্তির হাত থেকে বাঁচিয়ে দেবে?
বিধায়ক অগ্নিমিত্রা লেখেন — মানুষের জীবন নিয়ে তৃণমূলের ছিনিমিনি খেলার কোনও শেষ নেই। একজন নন-মেডিক্যাল আধিকারিক, তৃণমূলের তবস্সুম আরা নিজেই মানুষকে টিকা দিচ্ছেন। তিনি আসানসোল পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের সদস্য। চিকিৎসক-নার্সরা থাকা সত্ত্বেও তিনি নিজেই এ কাজ করছেন। তবস্সুম কি এটা করতে পারেন?
জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিকরাও বিষয়টির সমালোচনা করেছেন। আসানসোল পুরসভার স্বাস্থ্য আধিকারিক দীপক গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ‘এটা ঠিক প্রক্রিয়া নয়। যিনি স্বাস্থ্যকর্মী, তাঁরই টিকা দেওয়ার কথা।’ জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক অশ্বিনীকুমার মাজিও এ নিয়ে মুখ খুলেছেন।
টিকা নেওয়া ওই মহিলাও জানেন যে কোনও চিকিৎসক বা নার্স তাঁকে টিকা দেননি। তিনি বলেন, ‘চিকিৎসক পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। তবে আমাকে যিনি টিকা দিয়েছেন, তিনি ডাক্তার বা নার্স নন।’
বিষয়টি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে বিজেপি। কুলটির বিজেপি বিধায়ক অজয় পোদ্দারের বক্তব্য, ‘‘উনি কর্পোরেশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান ছিলেন। টিকাকরণ শিবিরে চিকিৎসক এবং নার্সরা থাকা সত্ত্বেও নিজের হাতে টিকা দিয়েছেন। এটা নিন্দনীয় কাজ। উনি তো চিকিৎসক বা নার্স নন।’
এ প্রসঙ্গে আসানসোল পুরসভার প্রশাসক অমরনাথ চট্টোপাধ্যায়, ‘এটা করা উচিত হয়নি। রিপোর্ট চেয়েছি। টিকা নেওয়া মহিলার কোনও সমস্যা হলে তার দায়ও যিনি টিকা নিয়েছেন তাঁর নেওয়া উচিত।’ তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়ও সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘এমনটা হয়ে থাকলে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top