রাজ্যে বিধিনিষেধের মধ্যে বালি পাচারের সময় পুলিশের জালে তিন ট্র্যাক্টরচালক

BALI.jpg

বাজেয়াপ্ত বালির গাড়িগুলি নিয়ে আসা হয়েছে থানায়

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: অবৈধ ভাবে নদী থেকে ট্র্যাক্টরে বালি ভর্তি করে পাচারের সময় পুলিশের হাতে ধরা পড়লো তিন ট্র্যাক্টর চালক। পূর্ব বর্ধমানের নাদনঘাট থানা এলাকার ঘটনা। ধৃতদের নাম আমিরুল শেখ, মধু বাগ ও আসাদুল শেখ। ধৃতরা নাদনঘাট থানার বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দা। পুলিশ বালি বেঝাই তিনটি ট্র্যাক্টরও বাজেয়াপ্ত করেছে। নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে বুধবার ধৃতদের কালনা মহকুমা আদালতে পেশ করে পুলিশ। বিচরক প্রত্যেককে দু’দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।
মঙ্গলবার হেমাতপুর জোড়া ব্রিজের কাছে নাকা চেকিং শুরু করে নাদনঘাট থানার পুলিশ। সেই সময় নদীয়ার দিক থেকে নাদনঘাটের দিকে আসছিল সাদা বালি বোঝাই তিনটি ট্র্যাক্টর। পুলিশ আধিকারিকরা ট্র্যাক্টরগুলিকে দাঁড় করানোর কথা বললে চালকরা গতি বাড়িয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। এর পরেই পুলিশ পিছু ধাওয়া করে তিনটি গাড়িকে আটকায়। বালি সংক্রান্ত বৈধ কোনও কাগজপত্র চালকরা দেখতে না পারার তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।
এমনিতে রাজ্য বিধিনিষেধ চলছে। এর মধ্যে নদী ঘাটগুলিতে বালি তোলার উপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তা সত্ত্বেও কী ভাবে পাচারের জন্য ট্র্যাক্টরে বালি লোড করা হয়েছিল তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top