বিজেপিকর্মীদের বয়কট! ভিন রাজ্যে থাকা বাঙালিদের কথা মনে করিয়ে হুঁশিয়ারি, বিতর্কে শুভেন্দু

IMG-20210605-WA0160.jpg

Onlooker desk: বিজেপি কর্মীদের বয়কটের লিফলেট নিয়ে বিতর্কে ইতি টানতে আসরে নেমেছিলেন খোদ তৃণমূল সাংসদ দেব। কিন্তু ওই লিফলেট নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়ে পাল্টা বিতর্ক শুরু করলেন বিজেপি বিধায়ক তথা বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তবে এক্ষেত্রে শুধু তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি নয়, বিজেপি শাসিত রাজ্যে থাকা বাঙালিকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। যা নিয়ে সমালোচনা ঝড় উঠেছে বিভিন্ন মহলে।
উল্লেখ্য, মহিষদায় সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস লেখা একটি কাগজে ১৭৬ ও ১৭৯ নম্বর বুথের উল্লেখ করে লেখা — পার্টির অনুমতি ছাড়া এই ব্যক্তিদের কোনও জিনিস বিক্রি করা যাবে না। চা দোকানদাররাও চা দিতে পারবেন না। সেখানে ১৮ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। এঁরা স্থানীয় বিজেপি ও সিপিএম কর্মী বলে পরিচিত। এমনকী, নির্দেশ অমান্য করলে দোকানদারদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। বিজেপি স্বাভাবিক ভাবেই এ নিয়ে সরব। বিষয়টি নিয়ে হইচই শুরু হতেই আসরে নামেন তারকা-সাংসদ দেব। ফেসবুকে পোস্ট করে তিনি জানালেন, ওই লিফলেটের সঙ্গে দলীয় কর্মীদের কোনও যোগ নেই। এর মধ্যে শনিবার পানিহাটিতে বেঙ্গল কেমিক্যাল-এর সামনে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তির উদ্বোধন করতে এসে মহিষদার লিফলেটের প্রসঙ্গ টানেন শুভেন্দু। তিনি জানান, বিষয়টি আর বাংলার গণ্ডির মধ্যে নেই। বাইরেই এ নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। বাঙালি হিসেবে এটা লজ্জার। এর পরেই তাঁর হুঁশিয়ারি, অন্যান্য রাজ্যেও কিন্তু বাংলার ৪০ লক্ষ মানুষ কাজ করেন। কেউ মহিষদার বিজেপিকর্মীদের বয়কট করলে সুরাট, গাজিয়াবাদ, নয়ডায় তাঁদেরকে বয়কট করতে পারেন। বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে বাংলার প্রচুর মানুষ কাজ করেন। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তাঁদের কাজ দিতে পারেননি এটা মাথায় রাখা উচিত। কিন্তু বিজেপি তেমন দল নয়। তাই কিছু করবে না। এর পরে দেবের ফেসবুক পোস্টের প্রসঙ্গ টেনে শুভেন্দু বলেন, ‘দেব নিজের ইমেজ বাঁচাতে এসব বলছেন। ওঁর কথা ওখানে কেউ শোনে বলে মনে হয় না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top