চেয়ারে বসে লাঠি হাতে বিজেপি কর্মীদের কান ধরে ওঠবস করালেন তৃণমূল নেতা

BJP-WORKER1.jpg

কান ধরে ওঠবস করানো হচ্ছে দুই বিজেপি কর্মীকে

বর্ধমান: লাঠি হাতে নিয়ে চেয়ারে বসে আছেন তৃণমূল নেতা। আর বিজেপি করার ‘অপরাধে’ দুই যুবককে প্রকাশ্যে কান ধরে ওঠবস করাচ্ছেন তিনি। আর নেতার পাশে বসে থাকা সাঙ্গপাঙ্গরা গুনছেন দু’জনের ওঠা বসার সংখ্যা।
লকডাউনের মধ্যে শনিবার শহর বর্ধমানের তিনকোনিয়া সংলগ্ন গুডশেড রোডে বসেছিল এমনই ‘রাজনৈতিক বিচারসভা’। সভার দণ্ডমুণ্ডের কর্তা হলেন পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূলের এসসি, ওবিসি সেলের সম্পাদক অশোক মণ্ডল। ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে রাজনৈতিক মহলে। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিজেপি নেতৃত্ব।
বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর বর্ধমানে এই প্রথম কোনও বিজেপি কর্মী ও সমর্থককে প্রকাশ্যে কানধরে ওঠবস করানো হল, এমনটা নয়। দিন কয়েক আগেই বর্ধমান উত্তর বিধানসভার বৈকুণ্ঠপুরে ভরা বাজারে দাঁড়িয়ে বিজেপি কর্মী পরিবারের এক মহিলাকে তাঁর মেয়ের সামনেই কনধরে ওঠবস করিয়ে ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের এক নেত্রী। সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই নিন্দার ঝড় ওঠে। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে শনিবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটালেন অশোক মণ্ডল।
এই ঘটনা নিয়ে নিন্দার ঝড় উঠলেও তা নিয়ে বিচলিত নন অশোক। তাঁর বক্তব্য, ‘দুই যুবক আমাদের পাড়ারই ছেলে। ওরা ভুল করে বিজেপিতে চলে যায়। তারপর তৃণমূলে পার্টি অফিসে ভাঙচুর করে। এদিন ওদেরকে মারধর করা হয়নি। শুধুমাত্র কানধরে ওঠবস করানো হয়েছে।’ যদিও এলাকার বিজেপি নেতা কল্লোল নন্দন বলেন, ‘এদিনের ঘটনার জন্যে ওই দুই যুবককে পুলিশের কাছে নালিশ জানাতে বলা হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top