খুনের পর স্ত্রীর বস্তাবন্দি দেহ গোয়ালের মাচায় রেখে ‘নাটক’ স্বামীর

1EDD73E9-A72A-4009-950E-D6A655907F95.jpeg

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: স্ত্রীকে খুন করে দেহ লোপাট করতে বস্তাবন্দি করে গোয়ালের মাচায়রেখেছিল স্বামী। যদিও শেষ রক্ষা হয়নি। সেখান থেকে ফুলকলি খাতুন (১৮) নামে ওই বধূর দেহ উদ্ধারকরল পুলিশ। দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্কের পর মাস তিনেক আগে ফুলকলিকে বিয়ে করেছিল পূর্ববর্ধমান জেলার মন্তেশ্বর থানার কাইগ্রামের বাসিন্দা বাবু শেখ। তার মধ্যে কী এমন ঘটল যে স্ত্রীকে খুনকরে বসল বাবু? নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ইতিমধ্যে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারও করেছে পুলিশ।পাশাপাশি বধূর দেহ ময়নাতদন্তের জন্য বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।অভিযুক্ত জামাইয়ের ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন মৃতার আত্মীয়রা।

বাবু ফুলকলি একই গ্রামের পাশাপাশি পাড়ার বাসিন্দা ছিলেন। প্রেমের সম্পর্ক থেকে মাস তিনেকআগে তাঁরা বিয়ে করেন। বৃহস্পতিবার সকালে হঠাৎ করেই বাবু বলতে শুরু করে, তার স্ত্রী অশান্তি করেবাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছে। খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। এমনকী খুনের বিষয়টি কেউ যাতে বুঝতে না পেরেবাইক নিয়ে বেরিয়ে নানা জায়গায় খোঁজাখুঁজি শুরু করে সে। এরপর রাতে বাড়ির গোয়ালঘরেরআশপাশ থেকে দুর্গন্ধ পান প্রতিবেশীরা। সন্দেহ হওয়ায় তাঁরা ফুলকলির বাপের বাড়ি মন্তেশ্বর থানায়খবর দেন। রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে গোয়ালঘরের মাচা থেকে বস্তাবন্দি মৃতদেহ উদ্ধার করে।তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, স্বামী বাবু শেখই পরিকল্পনা মাফিক স্ত্রীকে খুন করে। তার পর দেহবস্তাবন্দি করে গোয়ালের মাচায় তুলে রাখে। কিন্তু গন্ডগোল হয়ে যায় বৃহস্পতিবার রাতে মৃতদেহ থেকেগন্ধ ছড়িয়ে পড়তে। পুলিশের দাবি, জেরায় খুনের কথা স্বীকার করেছে বাবু। তবে খুনের কারণ বা কবে, কী ভাবে খুন করা হয়েছে তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

মৃতার মা কোহিনুর মল্লিক বলেন, ‘ভাব ভালবাসা করে বিয়ে করলেও মেয়ের দাম্পত্য জীবন সুখের ছিলনা। জামাই তার পরিবারের লোকেরা প্রায়শই টাকা পয়সার দাবি করত। কিন্তু মেয়েকে ভাবে মেরেদেবে ভাবতে পারিনি। বৃহস্পতিবার সকালে আমাদের জানানো হয়, মেয়ে ঝগড়া করে বাড়ি ছেড়ে চলেগিয়েছে। নাটক করে মেয়েকে খুঁজতে জামাই বাইকে চেপে বেরিয়ে যায়। কিন্তু দেহ পচন ধরে গন্ধ না পাওয়াগেলে আমরা জানতেই পারতাম না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top