নেশার টাকা না পেয়ে বাবাকে মার ছেলের, অপমানে আত্মঘাতী বৃদ্ধ

MURDER.jpg

প্রতীকী চিত্র

বর্ধমান: বাবার মৃত্যুর জন্য মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে ছেলেকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। নেশায় আসক্ত ওই ছেলের নাম প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়। বাড়ি পূর্ব বর্ধমানের রাধানগরের নুড়ি পাড়ায়। মৃতের স্ত্রী পুতুলের অভিযোগ, নেশার টাকা না-পেয়ে বাবা শ্যামল চট্টোপাধ্যায়কে (৬০) মারধর করে ছেলে। অপমান সহ্য করতে না পেরে সোমবার রাতে আত্মঘাতী হন শ্যামল। এ নিয়ে বর্ধমান থানায় অভিযোগ দায়ের করেন পুতুল। রাতেই প্রদীপকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ময়না-তদন্তে পাঠানো হয় শ্যামলের দেহ। ধৃতকে মঙ্গলবার বর্ধমান আদালতে পেশ করা হলে বিচারক তাকে ১ জুন পর্যন্ত বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
পুলিশ ও পরিবার সূত্রে খবর, নেশার টাকার জন্য হামেশাই বৃদ্ধ বাবা-মায়ের উপরে চাপ সৃষ্টি করত প্রদীপ। টাকা দিতে না পারলেই বাবাকে ধরে মারত সে। সোমবারও বেলা ১১টা বাবা শ্যামলের কাছে ১০ হাজার টাকা দাবি করে প্রদীপ। অভিযোগ, কীসের জন্য এত টাকা তার দরকার, তা জানতে চাওয়ায় লাঠি দিতে বাবাকে মারতে শুরু করে ছেলে। প্রতিবেশীরা পুলিশকে জানান, ছেলের এ ভাবে মার খেয়ে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন বৃদ্ধ শ্যামল। খানিক বাদে নিজের ঘরে ঢুকে গলায় গামছার ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন তিনি।
স্বামীর এই মৃত্যু মেনে নিতে পারেননি পুতুল। প্রদীপের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। আত্ম্যহত্যায় প্ররোচনার মামলায় ছেলেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top