পুলিশি অভিযানে উদ্ধার ৪৭ অক্সিজেন সিলিন্ডার, তুলে দেওয়া হবে স্বাস্থ্য দপ্তরের হাতে

Oxygen-Cylinder.jpg

বাজেয়াপ্ত করা অক্সিজেন সিলিন্ডার

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়: দিন কয়েক আগেই অবৈধ ভাবে অক্সিজেন সিলিন্ডার মজুতের অভিযোগে এক জনকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। তাঁকে সঙ্গে নিয়ে অভিযান চালিয়ে আরও ৪৭টি জাম্বো অক্সিজেন সিলিন্ডার উদ্ধার হল বুধবার। এ নিয়ে গত চার দিনে পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থানার পুলিশ মোট ৬২টি অক্সিজেন সিলিন্ডার উদ্ধার করল। পুলিশের দাবি, কালোবাজির উদ্দেশ্যেই এই সিলিন্ডারগুলি মেমারির পাহাড়হাটি এলাকার বিভিন্ন গোডাউনে মজুত করে রাখা হয়েছিল। উদ্ধার হওয়া সমস্ত অক্সিজেন সিলিন্ডার স্বাস্থ্য দপ্তরের হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিশ।
গত রবিবার গোপন সূত্রে খবর পেয়ে মেমারি থানার পুলিশ পাহাড়হাটির একটি রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডারের গোডাউনে হানা দেয়। সেখানে উদ্ধার হয় ১০টি অক্সিজেন ভর্তি সিলিন্ডার। এই ঘটনার পরেই পুলিশ স্থানীয় জাবুই গ্রামের বাসিন্দা গোডাউন মালিক দীপঙ্কর দত্তকে গ্রেপ্তার করে। ওই দিনই মেমারি শহরের একটি ডেরা থেকেও পুলিশ আরও একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার উদ্ধার করে। একই দিনে জেলায় কালনা থানার পুলিশের অভিযানে উদ্ধার হয় সাতটি অক্সিজেন ভর্তি সিলিন্ডার। বেআইনি ভাবে অক্সিজেন সিলিন্ডার মজুতের অভিযোগে গ্রেপ্তার হন কালনার তিন বাসিন্দা। এদিকে মেমারি থানার পুলিশ আরও অক্সিজেন সিলিন্ডার উদ্ধার ও চক্রের বাকিদের খোঁজ পেতে ধৃত দীপঙ্কর দত্তকে সোমবার বর্ধমান আদালত পেশ করে চার দিনের পুলিশি হেফাজতে নেয়। সোমবারও দীপঙ্করের অন্য একটি ডেরা থেকে পুলিশ চারটি অক্সিজেন সিলিন্ডার উদ্ধার করেছিল। এরপর বুধবার উদ্ধার হল আরও ৪৭টি সিলিন্ডার।
এসডিপিও (বর্ধমান দক্ষিণ) আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘দীপঙ্কর দত্তকে হেফাজতে নিয়ে টানা জিজ্ঞাসাবাদ চালাতেই আরও অক্সিজেন সিলিন্ডার অবৈধ ভাবে মজুত করে রাখার কথা জানা যায়। এই মহামারীর সময় যাতে কেউ কালোবাজারি করতে না পারেন তার জন্য পুলিশি অভিযান জারি থাকবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top