কন্যাশ্রীর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর রুমানা, বিতর্কের মুখে আবেগের কথা জানালেন মহুয়া

Polish_20210723_201551223.jpg

বহরমপুর ও কলকাতা: উচ্চ মাধ্যমিকে একক ভাবে সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া রুমানা সুলতানা (Rumana sultana) এ বার রাজ্য সরকারের ‘কন্যাশ্রী’ (kanyashree) প্রকল্পের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর। উচ্চ মাধ্যমিকে ৫০০-র মধ্যে ৪৯৯ পেয়েছেন মুর্শিদাবাদের কান্দির এই মেধাবী ছাত্রী। এর আগে মাধ্যমিকেও পঞ্চম স্থান পেয়েছিলেন রুমানা (Rumana sultana)। জেলার এই কৃতীকে সংবর্ধনা দিতে শুক্রবার বহরমপুরে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জেলা প্রশাসন। সেই অনুষ্ঠানেই মুর্শিদাবাদের জেলাশাসক শরদ কুমার দ্বিবেদী মেধাবী এই ছাত্রীকে কন্যাশ্রী (kanyashree) প্রকল্পে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর করার কথা ঘোষণা করেন। এই রুমানাই অনেক ছাত্রীকে উৎসাহ জোগাবেন বলে মনে করছেন জেলাশাসক।
উল্লেখ্য, উচ্চ মাধ্যমিকের ফল ঘোষণার সময় সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া রুমানার (Rumana sultana) নাম না বলে তাঁর ধর্ম দিয়ে পরিচয় দেন সংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাস। যা নিয়ে চরম বিতর্ক শুরু হয়। তোলপাড় হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়া। প্রতিবাদ জানানো হয় বেঙ্গল ইমাম অ্যাসোসিয়েশনের তরফেও। ঘটনাটিকে অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক, বেদনাদায়ক বলে উল্লেখ করে মহুয়া দাসের অপসারণ দাবি করে সংগঠনটি। পাশাপাশি রুমানার নাম কেন উল্লেখ করা হল না, সেই প্রশ্নও তোলা হয়েছে। কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরীও এ নিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। এমনকী এদিন শিক্ষক ঐক্য মঞ্চ নামে একটি সংগঠনের সদস্যরা সল্টলেকে উচ্চ মাধ্যমিক সংসদ ভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখান। প্রবল চাপের মধ্যে এদিন মহুয়া জানান, বিষয়টি আবেগের বশে বলে ফেলেছেন তিনি।
এদিকে এই বিষয়টি নিয়ে আর কোনও বিতর্ক চাইছেন না মুর্শিদাবাদ জেলার কান্দি শহরের হোটেল পাড়ার বাসিন্দা রুমানা সুলতানা (Rumana sultana)। বরং পড়াশোনায় মন দিতে চান তিনি। ছোট থেকেই শিক্ষার পরিবেশের মধ্যে বড় হয়েছেন। তাঁর বাবা রবিউল আলম ভরতপুর থানার অচলা বিদ্যামন্দিরের প্রধান শিক্ষক। মা সুলতানা পারভিন ভরতপুরের গয়সাবাদ অচলা বিদ্যামন্দিরের শিক্ষিকা। মাধ্যমিকের পর উচ্চ মাধ্যমিকেও মেয়ের এমন সাফল্য নিয়ে খুশি বাবা-মা। খুশি প্রতিবেশী থেকে স্কুলের সকলেই।
তবে এত খুশির মধ্যে বিতর্কিত বিষয়টা না হলেই ভালো বলে মনে করছেন রুমানা ও তাঁর পরিবার। এ নিয়ে রুমানার সংক্ষিপ্ত উত্তর, ‘আমার নাম বা ছাত্রী বলে উল্লেখ করলেই বেশি খুশি হতাম। ধর্ম উল্লেখ করা ঠিক নয়। তবে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভানেত্রীর কথার পরিপ্রেক্ষিতে আমার কোনও মন্তব্য করা ঠিক হবে না।’ এমনকী তিনি আর এ নিয়ে বিতর্ক চাইছেন না সেটাও বুঝিয়ে দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top