পশ্চিমবঙ্গের ফল মিলিয়েও ভোট কুশলীর ভূমিকা ছাড়তে চান পিকে

FA782A33-E5E0-4E9E-9D85-4D43F9106443.jpeg

Onlooker desk: তাঁকে বলা হচ্ছে এই নির্বাচনেরম্যান অফ দ্য ম্যাচ বিজেপির আসন সংখ্যা যে দুইঅঙ্ক ছাড়াবে না, গত ডিসেম্বরে টুইট করে সে কথা জানিয়েছিলেন ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর (পিকে)বলেছিলেন, তাঁর কথার নড়চড় হলে সোশ্যাল মিডিয়া ছেড়ে দেবেন।

এখনও পর্যন্ত যা ট্রেন্ড, তাতে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে, ২০০ বেশি আসনে সরকার গড়বেতৃণমূল।

আর এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ দিনে সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকারে পিকে জানালেন, ভোট কুশলীর ভূমিকাছেড়ে দিচ্ছেন তিনি। রবিবার প্রশান্ত বলেন, ‘আমি যা করছি, সেটা আর করতে চাই না। যথেষ্ট হয়েছে।এবার একটু বিরতি নিয়ে অন্য কিছু করার সময় এসেছে। এই জায়গাটা ছাড়তে চাই।

তাহলে কি রাজনীতিতে যোগ দেবেন? পিকে বলেন, ‘আমি একজন ব্যর্থ রাজনীতিক। একটু পিছিয়ে গিয়েভেবে দেখি কী করব।

বারের নির্বাচনে বিজেপির প্রচার এমন মোড় নিয়েছিল, যাতে অনেকেরই ধারণা হয়, তাদের জয় কার্যতসময়ের অপেক্ষা। সে প্রসঙ্গ টেনে প্রশান্ত কিশোর বলেন, ‘আমাদের যে কী কঠিন দিন গিয়েছে, বলারকথা নয়! নির্বাচন কমিশন নির্লজ্জের মতো পক্ষপাতিত্ব করেছে, আমাদের প্রচার করাই কঠিন হয়েদাঁড়িয়েছিল। তবে তৃণমূল যে খুব ভালো ফল করবে, সে ব্যাপারে নিশ্চিত ছিলাম। মিস্টার মোদী জনপ্রিয়মানে এটা নয় যে বিজেপি সব নির্বাচনে জিতবে।

ডিসেম্বরে ভোটার ফল আঁচ করে পিকে যে টুইটটি করেছিলেন, এদিন তা হু হু করে ছড়িয়ে পরে সোশ্যালমিডিয়া জুড়ে। সেদিন বিজেপির কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেছিলেন, ‘বিজেপির বর্তমান সুনামিতে আরকিছুদিনের মধ্যেই দেশ একজন ভোট কুশলীকে হারাবে।

পিকে তাঁর ভূমিকা ছাড়লে সেটা সত্যি হবে ঠিকই। কিন্তু তা হবে তাঁর স্বেচ্ছায়। বলা যায় বিজয়ীর প্রস্থান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top