‘গুমসুদা বাবুল’, জামুড়িয়ায় নিখোঁজ পোস্টার পড়ল সাংসদের নামে

posters-about-Babul-Supriyo-in-Jamuria.jpg

আসানসোল: ‘গুমসুদা বাবুল। তলাশ চাহিয়ে।’— আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র (Babul Supriyo) খোঁজে এমনই পোস্টার পড়ল তাঁর নির্বাচনী এলাকায়। বিষয়টি সামনে আসতেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। বিজেপির দাবি, সাংসদ তাঁর কাজ ঠিকই করছেন। কিন্তু রাজ্যের শাসকদল তাঁর বদনাম করতে এসব করছে। যদিও এর সঙ্গে তাদের কোনও সম্পর্ক নেই বলে দাবি করেছে তৃণমূল।
এ বার বিধানসভা নির্বাচনে টালিগঞ্জ কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)। কিন্তু সে লড়াইয়ে তিনি জয় পাননি। তার পর থেকে বিশেষ দেখা যায়নি খ্যাতনামা এই গায়ক তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীকে। এমনটাই অভিযোগ আসানসোলবাসীর। তাঁদের বক্তব্য, করোনার মতো মহামারীর সময় বহু মানুষ বিপাকে পড়েছেন। তার সঙ্গে সম্প্রতি ইয়াসের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ গিয়েছে। কিন্তু সাংসদের দেখা মেলেনি। এমনকী বাবুলের দত্তক নেওয়া সিদাবাড়ির কিছু মানুষও প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে বিপাকে পড়লে পাশে দাঁড়ান এলাকার তৃণমূল বিধায়ক। এমন পরিস্থিতিতে অনেক দিন ধরেই সাংসদকে নিয়ে চর্চা চলছিল আসানসোলে। এর মধ্যে বুধবার সকালে জামুড়িয়া বাসস্ট্যান্ড লাগোয়া এলাকায় বাবুলের ছবি দিয়ে নিখোঁজ পোস্টার পড়ায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। সবগুলি পোস্টারই হিন্দিতে লেখা। এবং পোস্টারের নীচে লেখা — জামুড়িয়া নাগরিক বৃন্দ।
অতীতে সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়র সঙ্গে তৎকালীন আসানসোল পুরসভার মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারির তরজা দেখেছেন শিল্পাঞ্চলের মানুষ। এখন জিতেন্দ্র অবশ্য দল বদলে বিজেপি শিবিরে। এবার বিধানসভা নির্বাচনে বাবুল এবং জিতেন্দ্র দু’জনেই পদ্ম প্রতীকে প্রার্থী হলেও কেউই জিততে পারেননি। তবে জিতেন্দ্র বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে বাবুলের সঙ্গে আসানসোলে সে ভাবে আর তৃণমূলের তরজা দেখা যায়নি। কিন্তু এদিন নিখোঁজ সংক্রান্ত পোস্টার উদ্ধার হতেই জোর তরজা শুরু তৃণমূল ও বিজেপি শিবিরের মধ্যে।
এ প্রসঙ্গে জামুড়িয়া ব্লক তৃণমূল ব্লক সভাপতি সাধন রায় বলেন, ‘পোস্টারগুলি কে বা কারা লাগিয়েছে তা আমাদের জানা নেই। এর সঙ্গে তৃণমূলের কোনও ভাবেই যোগ নেই। তবে পোস্টারে যা লেখা আছে তা মিথ্যা নয়। নির্বাচনের সময় প্রচারে সাংসদকে দেখা গিয়েছিল। তার পর এত কিছু হয়ে গেলেও তাঁকে আর সে ভাবে দেখা যায়নি।’
যদিও এই ঘটনায় তৃণমূলের দিকেই আঙুল তুলেছে গেরুয়া শিবির। বিজেপির মণ্ডল সভাপতি রানা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘রাজ্যজুড়ে কারা নোংরা রাজনীতি করছে তা সকলেরই জানা। সাংসদ আসানসোলের জন্য কী করেছেন তা এখানকার মানুষ জানেন।’ বিজেপি নেতা সন্তোষ সিং বলেন, ‘সাংসদ অফিস থেকে এলাকার বাসিন্দাদের সব রকম পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে। বাবুল সুপ্রিয় কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী হওয়ায় তাঁকে একাধিক রাজ্যের কাজ সামলাতে হয়। সব কিছুর পরেও তিনি আসানসোলবাসীর পাশে সব সময় আছেন। আসলে সাংসদের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্যই এ সব করা হচ্ছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top