ভাগ্নিকে নৃশংস ভাবে খুনের অভিযোগ, পলাতক অভিযুক্ত মামা, আটক দিদিমা

IMG-20210606-WA0001.jpg

বর্ধমান: ভাগ্নিকে নৃশংস ভাবে খুন করার অভিযোগ উঠল মামা ও দিদিমার বিরুদ্ধে। শনিবার চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষ থানার লতিফপুর গ্রামে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত কিশোরীর নাম পায়েল খাতুন (১৭)। মামার বাড়ি থেকেই পুলিশ এদিন তার মৃতদেহ উদ্ধার করে। ঘটনার বিষয়ে এদিনই মৃতার মা তাঁর ভাই জিয়ারুল রহমান ও মা কুর্সিয়া বেগমের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত মামা পলাতক। পুলিশ কিশোরীর দিদিমাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। এই ঘটনায় অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন এলাকাবাসী।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কিশোরীর মা স্বামী পরিত্যক্তা। ফলে মেয়েকে নিয়ে বাপেরবাড়িতে থাকেন তিনি। প্রতিবেশীরা জানান, কিশোরী মানসিক ভাবে সুস্থ ছিল না। সেই কারণে প্রায়শই সে অন্যের বাড়িতে চলে গিয়ে সেখানে থাকতো। তেমনই কয়েক দিন বাইরে থাকার পর কিশোরী শনিবার সকালে তাঁর মামার বাড়িতে ফেরে। তখন কিশোরীর মা বাড়িতে ছিলেন না। সেই সময় মামার বাড়ির লোকজন নির্যাতন চালিয়ে কিশোরীকে প্রাণে মেরে দেয়। ঘটনায় কথা জানাতে পারার পর পাড়ার লোকজন পুলিশে খবর দেন। সেই খবর পেয়েই মহকুমা পুলিশ আধিকারিক (বর্ধমান সদর) আমিনুল ইসলাম খান, সিআই (সি) রজতকান্তি পাল, ওসি প্রসেনজিৎ দত্ত-সহ অন্য পুলিশ আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছন। তারই মধ্যে গা ঢাকা দেন অভিযুক্ত মামা জিয়ারুল রহমান। পুলিশ কিশোরীর মৃতদেহ উদ্ধারের পাশাপাশি মৃতার দিদিমাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পুলিশ অভিযুক্ত মামার সন্ধান চালাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top