মোদীকে ক্ষতির রিপোর্ট দিয়ে দিঘা রওনা মমতার, টুইটে বিঁধলেন ধনখড়-মালব্য

MODI-MAMATA.jpg

কলকাতা: বৈঠকে থাকলেন না। তবে কলাইকুণ্ডায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস পরবর্তী রাজ্যের ক্ষয়ক্ষতি বিষয়ে তাঁকে অবহিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ সংক্রান্ত রিপোর্ট তুলে দেন মোদীর হাতে। খানিকক্ষণ কথা হয় দু’জনের। তবে সে সময়ে আর কেউ সেখানে ছিলেন না। পরে দিঘায় প্রশাসনিক বৈঠকে মমতা জানান, দিঘায় আসতে হবে বলেই মোদীর বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি।
যদিও তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে মমতাকে নিশানা করেছে বিজেপি। কারণ, ওই বৈঠকে শুভেন্দু অধিকারী থাকায় তা নিয়ে মমতার আপত্তির কথা বৃহস্পতিবার রাতেই নবান্নের তরফে দিল্লিকে জানানো হয়। আজ, শুক্রবার সকালে হিঙ্গলগঞ্জ ও সাগরে পরিদর্শন সারেন তিনি। সেখানেই জানান, মোদীর বৈঠকে থাকবেন না।
এ নিয়ে বিজেপির পাশাপাশি মমতাকে নিশানা করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও। তাঁর টুইট — প্রধানমন্ত্রীর রিভিউ বৈঠকে যদি মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর আধিকারিকরা থাকতেন তা হলে রাজ্যের উপকারই হতো। বিরোধিতার অবস্থান রাজ্য বা গণতন্ত্রের স্বার্থরক্ষা করতে পারে না। আজকের বৈঠকে মমতার না-থাকা সংবিধান বিরোধী।
কলাইকুণ্ডা এয়ারবেসে মোদীর বৈঠকে ধনখড়ও এদিন ছিলেন।
মমতাকে নিশানা করে টুইট করেছেন বিজেপি নেতা অমিত মালব্য। নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর কাছে পরাজয় মমতা এখনও মেনে নিতে পারছেন না এবং সেই কারণেই তিনি বৈঠকে থাকলেন না বলে অভিযোগ মালব্যর।
যদিও বৃহস্পতিবার নবান্ন যে প্রশ্ন তুলেছে, তার মূল বক্তব্য ছিল, শুভেন্দু এখনও সরকারি ভাবে বিরোধী দলনেতা নন। একজন বিধায়ক। তা হলে কোন অধিকারে তিনি ওই বৈঠকে থাকেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top