রাজ্যে একদিনে বজ্রপাতে মৃত ২৭, ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী

lightning.jpg

Onlooker desk: সোমবার ঘণ্টাখানের বৃষ্টিতে রাজ্যজুড়ে বজ্রপাতে মৃত্যু হল বেশ কয়েক জনের। এ খবর লেখা পর্যন্ত বিভিন্ন জেলা মিলিয়ে ২৭ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। এছাড়া পূর্ব বর্ধমান জেলায় দু’জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। দিন দু’য়েক আগেই পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরে এক দিনে চার জনের মৃত্যু হয়েছিল বজ্রপাতে। পরের দিন রাজ্য সরকারের তরফে দু’লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণের চেক তুলে দেওয়া হয়েছিল পরিবারগুলির হাতে। আর এদিন একসঙ্গে এতজনের মৃত্যুর পর পরিবারগুলিকে ২ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পাশাপাশি আহতদের ৫০ হাজার টাকা করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। জাতীয় বিপর্যয় তহবিল থেকে এই টাকা দেওয়া হবে। মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে টুইট করেছেন অমিত শাহও। এদিকে পরিবারগুলির পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, আগামী বুধ ও বৃহস্পতিবার তিনি মৃতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন।
সোমবার বিকেলে বজ্র-বিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস আগেই দিয়েছিল আবহাওয়া দপ্তর। বেলা গড়াতে না গড়াতে মিলে যায় পূর্বভাস। ঘন কালো মেঘে ঢেকে যায় আকাশ। বেলা থাকতে থাকতেই যেন সন্ধ্যা নেমে আসে। ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে চরম বাজ পড়তে শুরু করে। সব থেকে বেশি মৃত্যুর খবর মিলেছে হুগলি জেলা থেকে। এই জেলায় মোট ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর পরেই রয়েছে মুর্শিদাবাজ জেলা। সেখানে মৃতের সংখ্যা ৯। এর বাইরে বাঁকুড়া, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে দু’জন করে এবং নদিয়া জেলায় এক জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া পূর্ব বর্ধমান জেলার কাটোয়ার চন্দ্রপুরে এবং কালনার ভবানন্দপুরে দু’জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।
মৃতদের মধ্যে যে ক’জনের নাম পাওয়া গিয়েছে তাঁরা হলেন হুগলির জেলার সিঙ্গুরের নসিবপুরের সুস্মিতা কোলে, খানাকুলের জগন্নাথপুরের শিশির অধিকারী, বালিপুরের হেমন্ত গুছাইত ও তাঁর স্ত্রী মালবিকা গুছাইত, গোবিন্দপুরের কানাই লাহিড়ি, দাদপুরের নবগ্রামের কিরণ রায়, তারকেশ্বরে মালপাহাড়পুরের সঞ্জীব সামন্ত, পশ্চিম মেদিনীপুরের অরুণ মণ্ডল ও অর্চনা রায়, পূর্ব মেদিনীপুরের শম্পা মণ্ডল ও গৌরাঙ্গ মাঝি, মুর্শিদাবাদের সূর্য কর্মকার, সাইনুল ইসলাম, এনামুল শেখ, জালালউদ্দিন শেখ, সুনীল দাস, দুর্যোধন দাস, মারাজুল শেখ, প্রহ্লাদ মুরারি, অভিজিৎ বিশ্বাস, নদিয়ার মধুসূদন দাস এবং বাঁকুড়ার কৃষ্ণপদ হাঁসদা ও বাসুদেব মাহাতো। হঠাৎ এ ভাবে মৃত্যু হওয়ায় সংশ্লিষ্ট এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top