বৃদ্ধ বাবাকে ঘুম থেকে তুলে পিটিয়ে মারার অভিযোগ, গ্রেপ্তার মদ্যপ ছেলে

son-kills-father-in-Kalna.jpg

স্বামীর মৃত্যুর পর হাসপাতালে অঞ্জলিদেবী

বর্ধমান: ভোর রাতে মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরেছিল ছেলে। নেশার ঘোরে বৃদ্ধ বাবাকে ঘুম থেকে তুলে খুনের অভিযোগ উঠল ওই ছেলের বিরুদ্ধে। ঘটনায় বিশ্বজিৎ হালদার নামে অভিযুক্ত ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে ঘটনার কথা জানাজানি হতেই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় পূর্ব বর্ধমান জেলার কালনার (Kalna) কাকুরিয়া পঞ্চায়েতের মেদগাছি গ্রামে। কালনার বুলবুলিতলা ফাঁড়ির পুলিশ মৃত কুমুদরঞ্জন হালাদারের (৭১) দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য এদিনই কালনা (Kalna) মহকুমা হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এদিকে ঘটনার পর অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন এলাকার বাসিন্দারা।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কালনার মেদগাছি গ্রামে বাড়ি কুমুদরঞ্জন হালদারের। সত্তর ঊর্ধ্ব এই বৃদ্ধ এমনিতেই অসুস্থ। বুধবার ভোররাতে নিজের ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন তিনি। ছেলে বিশ্বজিৎ তখনও বাড়ি না ফেরায় মা অঞ্জলিদেবী না ঘুমিয়ে বাড়িতে ছেলের খাবার আগলে বসে ছিলেন। ভোর তিনটে নাগাদ মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফেরে ছেলে বিশ্বজিৎ। ছেলেকে নেশাগ্রস্ত অবস্থায় বাড়ি ঢুকতে দেখে প্রশ্ন করেন মা। এতেই রেগে অগ্নিশর্মা হয়ে মায়ের উপরে চড়াও হয় বিশ্বজিৎ। ধারালো হাঁসুয়া নিয়ে বিশ্বজিৎ তার মায়ের গলায় ঠেকালে মা প্রাণভয়ে ঘর ছেড়ে পালান। এরপর বিশ্বজিৎ তার বৃদ্ধ বাবাকে ঘুমন্ত অবস্থায় খাট থেকে তুলে এলোপাথাড়ি মারতে শুরু করে। ছেলের মারে গুরুতর জখম হয়ে ঘরের মেঝেতে লুটিয়ে পড়েন কুমুদরঞ্জন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে গ্রামীণ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকরা তাঁকে কালনা (Kalna) মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। কিন্তু কালনা (Kalna) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই তাঁর মৃত্যু হয়।
ঘটনার খবর পেয়ে বুলবুলিতলা ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ছেলে বিশ্বজিৎ হালদারকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। জেরায় বাবাকে মারধরের কথা কবুল করার পরেই পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। বৃদ্ধের এ ভাবে মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তাঁরা অভিযুক্ত ছেলের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top