‘বয়কট’ লিফলেটে তৃণমূল জড়িত নয়, ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে সরব দেব

DEV.jpg

কেশপুর: মারপিট, গোলমাল, তরজা থেকে খুনোখুনি — রাজনৈতিক দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে এমন নানা কাণ্ড ঘটেই থাকে। কিন্তু একেবারে লিফলেট বিলি করে পার্টির অনুমতি ছাড়া একদল লোককে দোকান থেকে জিনিসপত্র বিক্রিতে বাধা, এমনকী চা পর্যন্ত দেওয়া যাবে না, এমন ফতোয়া জারির কথা অহরহ শোনা যায় না। অথচ তেমনই একটি লিফলেট ঘিরে কেশপুরে তরজায় জড়িয়েছে তৃণমূল-বিজেপি।
দেখা যাচ্ছে, মহিষদা সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস লেখা কাগজে ১৭৬ ও ১৭৯ নম্বর বুথের উল্লেখ করে লেখা — পার্টির অনুমতি ছাড়া এই ব্যক্তিদের কোনও জিনিস বিক্রি করা যাবে না। চা দোকানদাররাও চা দিতে পারবেন না। সেখানে ১৮ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। এঁরা স্থানীয় বিজেপি ও সিপিএম কর্মী বলে পরিচিত। এমনকী, নির্দেশ অমান্য করলে দোকানদারদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। বিজেপি স্বাভাবিক ভাবেই এ নিয়ে সরব। এ বার বিষয়টি নিয়ে আসরে নামলেন তারকা-সাংসদ দেব। ফেসবুকে পোস্ট করে তিনি জানালেন, ওই লিফলেটের সঙ্গে দলীয় কর্মীদের কোনও যোগ নেই।
এ বারের নির্বাচনে কেশপুরে তৃণমূল জিতলেও ওই দুই বুথে এগিয়ে ছিল বিজেপি। তার জেরেই শাসকদল এমন লিফলেট বিলি করছে বলে গেরুয়া শিবিরের দাবি।
কেশপুর আবার দেবের নিজের গ্রাম। এমন একটি ঘটনায় মুখ খুলেছেন তিনি। লিফলেটের ছবি দিয়ে ফেসবুকে দেব লেখেন — এটি দেখে আমার দলের কর্মীদের সঙ্গে ব্যক্তিগত ভাবে কথা বলেছি। তাঁরা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন যে তৃণমূল দল বা তার কোনও সদস্য এই লিফলেট বিলি করেননি। যে দলেরই হোন না কেন, এমন ঘৃণা ছড়ানোর কাজ আমি কখনও সমর্থন করব না। সাংসদ হিসাবে আমি মানুষের পাশে দাঁড়ানোর শপথ নিয়েছি। যাঁরা আমাকে ভোট দিয়েছেন, কেবল তাঁদের নয়, সেই শপথ সকলের পাশে দাঁড়ানোর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top