বাঁশের মাচা ভাঙা নিয়ে তুলকালাম গ্রামে, সংঘর্ষে জখম চার মহিলা-সহ ৮

Galsi-clash.jpg

চিকিৎসার জন্য স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়েছে জখমদের

বর্ধমান: বাঁশের তৈরি বসার মাচা ভাঙা নিয়ে গ্রামের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে জখম হলেন চার মহিলা-সহ আট জন। বুধবার বিকালে ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের গলসির পারাজের করকডাল গ্রামে। খবর পেয়ে গলসি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। উত্তেজনা থাকায় এলাকায় পুলিশ টহল শুরু হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার গ্রামে থাকা বাঁশের তৈরি একটি মাচা ভেঙে দেওয়া নিয়েই দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধের সূত্রপাত। ওই দিন থেকেই করকডাল গ্রামের পরিবেশ উত্তপ্ত হয়েছিল। মাচা ভাঙা নিয়ে শেষ পর্যন্ত এদিন বিকালে দুই গোষ্ঠী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এলাকাবাসীর দাবি, সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়া একটি গোষ্ঠীর লোকজন ব্লক তৃণমূল সভাপতি জনার্দন চট্টোপাধ্যায়ের অনুগামী। অপর পক্ষ জেলা সংখ্যালঘু সেলের সহ সভাপতি মহম্মদ মোল্লা গোষ্ঠীর অনুগামী। সংঘর্ষে জনার্দন গোষ্ঠীর চার মহিলা-সহ ছয় জন জখম হয়েছেন। অন্যদিকে মহম্মদ মোল্লা গোষ্ঠীরও দু’জন জখম হয়েছেন। সকলকেই রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুরসা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসার জন্যে পাঠানো হয়।


তৃণমূল নেতা জনার্দন চট্টোপাধ্যায়ের অনুগামী হিসেবে এলাকায় পরিচিত শেখ মন্টু ও তাঁর পরিবারের লোকজনের অভিযোগ, তাঁদের গ্রামে থাকা বাঁশের তৈরি বসার মাচাটি ভেঙে দেয় মহম্মদ মোল্লার লোকজন। যাঁরা ভাঙেন তাঁরা করকডাল, ভিমসারা, বোলপুর ও রানাডি এলাকার বাসিন্দা। এর পর ওঁরা এদিন বিকালে বাড়ির পাঁচিল টপকে ঢুকে মহিলা ও আত্মীয়দের বাঁশ দিয়ে মারধর করেন। মারধরে পরিবারের দুই পুরুষ ও চারজন মহিলা জখম হন। যদিও মহম্মদ মোল্লার অনুগামী রাফিজুল মল্লিকের দাবি, পারিবারিক বিবাদের জেরে শেখ মন্টুর পরিবারে সঙ্গে মারামারি হয়। মন্টুর পরিবারের লোকজন এদিন সশস্ত্র অবস্থায় তাঁদের উপর চড়াও হয়। তাঁকে ও তাঁর পরিবারের আরও এক জনকে মেরে জখম করে। তাঁরা প্রতিরোধ গড়ে তুললে সংঘর্ষ বেধে যায়। রফিজুল দাবি করেন, তাঁরা রাজনীতি করলেও ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই। অপর পক্ষ অহেতুক এই ঘটনা নিয়ে রাজনীতি টেনে আনছেন।
গলসির তৃণমূলের কোনও নেতা এদিনের ঘটনা নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি। তবে পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top